ইলিশের সরবরাহ প্রচুর, দাম নাগালের বাইরে ! দাম বেড়েছে পেঁয়াজ রসুন আদারও ।

gd_55016_1502505247
Click/Tap this image to Join the Conversations

বাজারে ইলিশ মাছের সরবরাহ প্রচুর। তরপরও দাম সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। তবে গত সপ্তাহের তুলনায় দাম একটু কমেছে। কিন্তু দাম আরও কমা উচিত ছিল বলে মনে করছেন ক্রেতারা।

 

দাম না কমা সম্পর্কে বিক্রেতাদের বক্তব্য- ‘এই সময় যেভাবে ইলিশের সরবরাহ থাকার কথা ছিল সেভাবে নেই।

এ কারণে দাম দ্রুত কমছে না। তবে দু-চার দিন পর দাম আরও কমবে।’ এদিকে নতুন করে দাম বেড়েছে পেঁয়াজ,আদা ও রসুনের। আগের বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে সবজি, চাল ও অন্যান্য নিত্যপণ্য।

শুক্রবার রাজধানীর শেওড়াপাড়া বাজার ও কারওয়ান বাজারসহ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে এ চিত্র।

এদিন রাজধানীতে বাজার ভেদে এক কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হয় দুই হাজার ৪০০ টাকা জোড়া। তবে এই আকারের মাছ গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছিল তিন হাজার থেকে তিন হাজার ২০০ টাকায়। সে তুলনায় জোড়ায় কমেছে ৬০০-৮০০ টাকা।

৮০০ গ্রাম ওজনের এক জোড়া ইলিশ বিক্রি হয়েছে এক হাজার ৪০০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল এক হাজার ৮০০ টাকা। এ ক্ষেত্রে জোড়াপ্রতি কমেছে ৪০০ টাকা।

৭০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের জোড়া বিক্রি হয়েছে এক হাজার ২০০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ১ হাজার ৪০০ টাকা। এ ক্ষেত্রে জোড়ায় কমেছে ২০০ টাকা। ৫০০ গ্রাম ওজনের এক জোড়া ইলিশ বিক্রি হয়েছে ৬০০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৯০০ টাকা। এ ক্ষেত্রে জোড়ায় কমেছে ৩০০ টাকা।

এ ছাড়া জাটকা সাইজের এককেজি ইলিশ বিক্রি হয়েছে ৪০০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৬০০ টাকা। এ ক্ষেত্রে কমেছে কেজিতে ২০০ টাকা। কারওয়ান বাজারের ইলিশ মাছ ব্যবসায়ী শুকুর আলী জানান, চলতি সপ্তাহে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে।

তাই দামও অনেকটা কমে গেছে। এভাবে যত বেশি সরবরাহ বাড়বে দামও তত বেশি কমবে। একই বাজারের ব্যবসায়ী শামসুল হক বলেন, ‘যেভাবে মাছ ধরা পড়ার খবর শোনা যাচ্ছে সেভাবে সরবরাহ বাড়েনি। তাই কাক্সিক্ষত মাত্রায় কমে যায়নি।’

অপর ইলিশ মাছ ব্যবসায়ী মাঈনুদ্দিন বলেন, ‘পরশু দিন ইলিশের দাম একটু কম ছিল। সে তুলনায় আজ (শুক্রবার) দাম একটু চড়া। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, মাছের সরবরাহ এখনও পুরোপুরি শুরু হয়নি। দু-চারদিন পর দাম কমবে।’

শেওড়া পাড়া বাজারের মাছ কিনতে এসেছিলেন ব্যবসায়ী শফিকুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘শুনেছি প্রচুর ইলিশ ধড়া পড়ছে। তাই অনেক আশা নিয়েই বাজারে এসেছি। কিন্তু এসে দেখলাম আশানুরূপ দাম কমেনি। গত সপ্তাহের তুলনায় দাম কিছুটা কমেছে।’

তিনি বলেন, ‘দাম কাক্সিক্ষত মাত্রায় না কমার কারণ হিসেবে ব্যবসায়ীরা যেসব কথা বলছেন সেগুলো ঠিক নয়। অনেক সময় ইলিশ মাছ বেশি ধরা পড়লে সেগুলো ফ্রিজে রেখে দেয়া হয়।

পরে দাম বাড়লে বিক্রি করা হয়। মজুদদারির বিষয়টি সংশ্লিষ্টদের খতিয়ে দেখা উচিত। কেননা এ থেকে জেলেরা কোনো সুবিধা পান না। মধ্যস্বত্বভোগীরা মাঝখান থেকে পকেট ভারি করেন। এটা মেনে নেয়া যায় না।’

সবজির বাজার ঘুরে দেখা গেছে, দেশি পেঁয়াজ ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪০ টাকা। আমদানি করা পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৫২ টাকা বিক্রি হচ্ছে, যা গত সপ্তাহে ছিল ৩৫ টাকা। আমদানি করা রসুন প্রতিকেজি ১২০ টাকা বিক্রি হচ্ছে, যা গত সপ্তাহে ছিল ৮০ টাকা। দেশি রসুনও প্রায় একই দামে বিক্রি হচ্ছে।

আদা বিক্রি হয় ১২০ টাকা কেজি দরে, যা গত সপ্তাহে ছিল ১০০ টাকা। এভাবে দাম বাড়ার সঠিক কোনো কারণ জানাতে পারেননি কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ী জুয়েল। তিনি বলেন, বৃষ্টি, ঈদসহ বিভিন্ন কারণে পাইকারি বাজারে দাম বেড়েছে।

শুক্রবার প্রতিকেজি আলু ২০-২৫ টাকা, পটল ৪৫-৫০ টাকা, কচুমুখি ৪০ টাকা, বেগুন ৬০ টাকা, সিম ১২০ টাকা, করলা ৬০ টাকা, ফুলকপি প্রতি পিচ ৪০ টাকা, বাঁধাকপি ৪৫ টাকা, বরবটি ৭০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, ঝিঙ্গা ৬০ টাকা, টমেটো ১২০ টাকা এবং কাঁচামরিচ ১২০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

এদিন ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয় প্রতি কেজি ১৪০-১৪৫ টাকা, লেয়ার (সাদা) ১৬০ টাকা এবং লেয়ার (লাল) ১৯০ টাকা। এ ছাড়া গরুর মাংস প্রতি কেজি ৫০০ টাকা, খাসি ৭৫০ টাকা এবং বকরির মাংস ৬০০ টাকা। এদিকে আগের বাড়তি দামেই বিক্রি হয়েছে সব ধরনের চাল। এ ছাড়া ইলিশ মাছের বাইরে অন্যান্য মাছের দাম স্থিতিশীল রয়েছে।

Join the Conversations on this Content –

 

gd_55016_1502505247
Click/Tap this image to Join the Conversations

 

🖌 বিশ্বের যত রংচংয়ে ও বৈচিত্র্যপূর্ণ চায়না টাউন

150742Chinatown-main.jpgপর্যটকরা যেখানেই যান না কেন, তাদের কাছে বড় আকর্ষণ হয়ে থাকে সেখানকার চায়না টাউন। সেখানে শুধু রং আর বৈচিত্র্যের ছড়াছড়ি। এখানে ভ্রমণকারীরা জেনে নিন বিশ্বের সবচেয়ে রংচংয়ে  কয়েকটি চায়না টাউনের খবর।

সিঙ্গাপুর 
দেশটির চায়না টাউনে চীনারা প্রথম বসতি স্থাপন করে। এখন এটা ব্যাপকভাবে পশ্চিমা বিশ্বের প্রভাবে ছেয়ে গেছে। তবে ঐতিহ্য ভুলে যাননি তার। এখানে রয়েছে চাইনিজদের সেই প্রথম দিককার কিছু প্রতিষ্ঠান, ঐতিহ্যে পূর্ণ স্থাপনা, ফুড স্ট্রিট, রাতের বাজার আর সংস্কৃতির বৈচিত্র্য। এখানকার কিছু অংশ সিঙ্গাপুরের জাতীয় ঐতিহ্য হিসাবে স্থান করে নিয়েছে। আধুনিক শহরে প্রাচীনের বসতি মিলিয়ে অসাধারণ এক স্থান।

মেলবোর্ন 
অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের চায়না টাউনটি কিন্তু বিশ্বের প্রাচীনতম চায়না টাউন। ভিক্টোরিয়ার গোল্ড রাশের সময়কার শহর এটি। সেই ১৮৫৪ সালের দিকে গড়ে ওঠে। এখানেই দেখতে পাবেন বিশ্বের দীর্ঘতম ড্রাগন মিলেনিয়াম দাই লুং ড্রাগন। এটি ১০০ মিটার লম্বা। চাইনিজ নিউ ইয়ার প্যারেডে ড্রাগনটিকে জীবন্ত করে তোলেন ২০০ জন মানুষ।

কুয়ালা লামপুর

মালয়েশিয়ার রাজধানীতে রয়েছে আরেকটি নজরকাড়া চায়না টাউন। এখানে মূল্যবান খনিজ সম্পদের খোঁজে যে চাইনিজরা এসেছিলেন তারা ১৮৫০ সালের দিকে এই টাউন গড়ে তোলেন। তারাই বনের বসতি থেকে স্থানটিকে টিনের খনিজ শিল্পাঞ্চলে পরিণত করে। ভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর মূল অংশ তারাই। মালয়েশিয়ার অর্থনীতিতে তাদের অবদান অসামান্য। স্থানীয়ভাবে চায়না টাউনটি পেতালিং স্ট্রিট বা জালান পেতালিং নামে পরিচিত। রাতের বাজার, খাবার আর রংচংয়ে দৃশ্যের জন্য বিখ্যাত এক স্থান।

টরেন্টো 
কানাডার টরেন্টোতে রয়েছে এই চায়না টাউন। চাইনিজদের জন্য রয়েছে এখানে ৭টি চায়না টাউন। ১৯৬০ এর দিকে মূল চায়না টাউন গড়ে তোলা হয় এখানে। পরে এই শহরটি বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে যায়। ১৯৮০ এর দিকে গ্রেটার টরেন্টো অঞ্চলের চাইনিজরা স্কারবোরো, মিসিসাউগা, রিচমন্ড হিল, মারখাম আর নর্থ ইয়র্কে ছড়িয়ে পড়েন। প্রতিটি টাউন তার আপন বৈশিষ্ট্যে অনন্য।

নিউ ইয়র্ক 

আমেরিকার এই চায়না টাউনটি গড়ে তোলেন ম্যানহাটান লোয়ার ইস্ট সাইড থেকে আসা চাইনিজরা। ১৯ শো শতকের শেষের দিকে তারা আসতে শুরু করেন। ১৯৮০ সালের দিকে এটি হয়ে ওঠে এশিয়ার বাইরের বৃহত্তম চায়না টাউন। এলমহার্স্ট আর কুইন্সেও ছড়িয়ে পড়তে থাকে চাইনিজদের শহর। এভিনিউ ইউ এবং ব্রুকলিনের এইটথ এভিনিউ হয়ে ক্রমবর্ধমান চায়না টাউন কিন্তু ম্যানহাটানের প্রায় সমান হয়ে গেছে।

Join the Conversations on this Content here – 

Chinatown3
Click/Tap this image to Join the Conversations

Grand Opening Uttara Barcode

If you want to go quickly, go alone.
If you want to go far, go together.
-African Proverb.

বারকোডের যাত্রা প্রথম শুরু হয় চট্টগ্রামের নাসিরাবাদের একটি মাত্র ছোট্ট শাখা দিয়ে। এরপর বারকোডের সাথে যোগ দিলেন একদল বারকোড ফ্যান, যাদের আমরা ভালবেসে নাম দিয়েছি ‘বারকোডিয়ান’।

বারকোডিয়ানদের উৎসাহ এবং ভালবাসা আমাদেরকে বড় স্বপ্ন দেখার সাহস দিয়েছে। সাহস দিয়েছে সারা বাংলাদেশে বারকোডকে ছড়িয়ে দেওয়ার।

আপনাদের সাহস এবং ভালবাসাকে সাথে নিয়ে ইনশাআল্লাহ আগামী ৮ই জুন ২০১৭ তারিখে বারকোড ক্যাফের উত্তরা শাখার যাত্রা শুরু হবে। উত্তরার সাত নম্বর সেক্টরের এই বারকোড ঢাকায় আমাদের দ্বিতীয় শাখা।
আশাকরছি এই শুভ যাত্রায় সবসময়ের মত এবারো আপনারা আমাদের সাথে থাকবেন এবং আমাদেরকে সফল হতে সাহায্য করবেন।

সবশেষে সকল বারকোডিয়ানদেরকে অনেক অনেক ধন্যবাদ দিতে চাই সবকিছুর জন্য, সবসময় সাথে থাকার জন্য।

18813166_10155041271838941_5728002885538628831_n

Grand Opening Uttara Barcode

If you want to go quickly, go alone.
If you want to go far, go together.
-African Proverb.

বারকোডের যাত্রা প্রথম শুরু হয় চট্টগ্রামের নাসিরাবাদের একটি মাত্র ছোট্ট শাখা দিয়ে। এরপর বারকোডের সাথে যোগ দিলেন একদল বারকোড ফ্যান, যাদের আমরা ভালবেসে নাম দিয়েছি ‘বারকোডিয়ান’।

বারকোডিয়ানদের উৎসাহ এবং ভালবাসা আমাদেরকে বড় স্বপ্ন দেখার সাহস দিয়েছে। সাহস দিয়েছে সারা বাংলাদেশে বারকোডকে ছড়িয়ে দেওয়ার।

আপনাদের সাহস এবং ভালবাসাকে সাথে নিয়ে ইনশাআল্লাহ আগামী ৮ই জুন ২০১৭ তারিখে বারকোড ক্যাফের উত্তরা শাখার যাত্রা শুরু হবে। উত্তরার সাত নম্বর সেক্টরের এই বারকোড ঢাকায় আমাদের দ্বিতীয় শাখা।
আশাকরছি এই শুভ যাত্রায় সবসময়ের মত এবারো আপনারা আমাদের সাথে থাকবেন এবং আমাদেরকে সফল হতে সাহায্য করবেন।

সবশেষে সকল বারকোডিয়ানদেরকে অনেক অনেক ধন্যবাদ দিতে চাই সবকিছুর জন্য, সবসময় সাথে থাকার জন্য।

18813166_10155041271838941_5728002885538628831_n

🖌 আপন জুয়েলার্সের সাড়ে ১৩ মণ সোনা জব্দ

বনানীতে দুই ছাত্রী ধর্ষণকারী সাফাতের বাবার মালীকানাধীন আপন জুয়েলার্সের সাড়ে ১৩ মণ সোনা ও ৪২৭ গ্রাম হিরা কাস্টমসের জিম্মায় নেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।আজ রোববার সকাল ৯টা থেকে আপন জুয়েলার্সের গুলশান ডিসিসি মার্কেট, গুলশান অ্যাভিনিউ, উত্তরা, সীমান্ত স্কয়ার ও মৌচাকের পাঁচটি শোরুমে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে সোনা জব্দের কার্যক্রম শুরু হয়।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মইনুল খান জানান, এর আগে এই পাঁচটি শো রুমে শুল্ক গোয়েন্দারা অভিযান চালায়। তখন এই সাড়ে ১৩ মণ সোনা ও সোনার অলংকার এবং ৪২৭ গ্রাম হিরার বৈধ কাগজপত্র চাইলে মালিকেরা তা দেখাতে পারেননি। এগুলোর মূল্য প্রায় আড়াই শ কোটি টাকা। এরপর আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ ও তার দুই ভাইকে কাকরাইলে কার্যালয়ে তলব করা হয়। দুই দফায় তারা সশরীরে হাজির হন তবে বৈধ কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। সর্বশেষ তারা ৩০ মে অধিদপ্তরে যে কাগজপত্র পাঠিয়েছিলেন তাও বৈধ নয়। এ কারণে এই পাঁচটি শো রুমের স্বর্ণালংকার জব্দ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অধিদপ্তর।মইনুল খান বলেন, এগুলো ঢাকা কাস্টম হাউসের শুল্ক গুদামের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা দেওয়া হবে। এরপর আইন অনুযায়ী তা নিষ্পত্তি করা হবে। এখন জব্দ তালিকা তৈরি হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত আছেন। জব্দ তালিকা শেষে তাদের তত্ত্বাবধানে নিরাপত্তা বেষ্টনীর মাধ্যমে এগুলো বাংলাদেশ ব্যাংকে নিয়ে যাওয়া হবে।রাজধানীর বনানীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি শাফাত আহমেদের বাবা আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ‘অবৈধ সম্পদ’ খুঁজতে তাঁর প্রতিষ্ঠানের পাঁচটি বিক্রয়কেন্দ্রে গত ১৪ ও ১৫ মে অভিযান চালায় শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তর। প্রতিষ্ঠানটির গুলশান ডিসিসি মার্কেট, গুলশান অ্যাভিনিউ, উত্তরা, সীমান্ত স্কয়ার ও মৌচাকের পাঁচটি শোরুমে অভিযান চালিয়ে প্রায় সাড়ে ১৩ মণ সোনা ও ৪২৭ গ্রাম হিরা সাময়িকভাবে জব্দ করেন।শুল্ক গোয়েন্দা দপ্তর জানায়, আপন জুয়েলার্সের দেওয়া ১৮২ জনের তালিকার মধ্যে ৮৫ জন গ্রাহককে ২ দশমিক ৩ কেজি স্বর্ণালংকার অক্ষত অবস্থায় ফেরত দেওয়া হয়েছে, যা ওই সব গ্রাহক অলংকার তৈরি ও মেরামতের জন্য দিয়েছিলেন। বাকি সোনার বিষয়ে আপন জুয়েলার্স কোনো বৈধ কাগজ দেখাতে পারেনি।