বাংলাদেশে রোগী বাণিজ্যের সফর স্থগিত করলেন কলকাতার প্রতারক ডাঃ গৌতম খাস্তগীর 💚 CGBANGLA.com ।| COOL CONTENT from Chittagong

gowtam-m120160926083802সব আয়োজন শেষ করেও বাংলাদেশে আসা স্থগিত করলেন ডা. গৌতম খাস্তগীর। কলকাতার প্রজনন বিশেষজ্ঞ এবং গাইনোকোলজিক্যাল এন্ডোস্কোপিক সার্জন পরিচয় দিয়ে বাংলাদেশের রোগীদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে এই খাস্তগীরের বিরুদ্ধে।

সূত্র জানায়, ঢাকার উপকণ্ঠে একটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর এবং ১ ও ২ অক্টোবর রোগী দেখার কথা ছিল খাস্তগীরের। তবে বাংলানিউজে সংবাদ প্রকাশের পর প্রমাণ মেলে, বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) অনুমোদন না নিয়েই এ দেশে রোগী দেখছেন তিনি। সংবাদ প্রকাশের পর বিষয়টি আমলে নিয়ে খতিয়ে দেখছে বিএমডিসি এবং স্বাস্থ্য অধিদফতর।

ওই হাসপাতালের একজন দ্বায়িত্বশীল কর্মকর্তা বাংলানিউজকে জানান, ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে ২ অক্টোবরের শিডিউলটি স্থগিত করা হয়েছে।

তবে সূত্র জানায়, শিডিউল স্থগিত করে বিএমডিসি থেকে অনুমোদন নেওয়ার তোরজোড় চালাচ্ছেন ডা. খাস্তগীর ও ওই প্রতিষ্ঠান। আগামী দুর্গাপূজার ছুটিতে ডা. খাস্তগীর বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করবেন। মন্ত্রণালয় ও দূতাবাসের কাগজ জোগাড়ের জন্যে আবেদন করেছেন। তবে বিগত দিনগুলোতে বিএমডিসি’র অনুমোদন না নিয়েই রোগী দেখেছেন- এ অভিযোগের বিষয়ে বিএমডিসির কাছে জবাবদিহি করতে হচ্ছে খাস্তগীরকে।

বিএমডিসি’র রেজিস্ট্রার ডা. মো. জাহেদুল হক বসুনিয়া মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বাংলানিউজকে বলেন, ‘দু’ভাবে বিদেশি চিকিৎসকদের দেশে রোগী দেখার অনুমোদন দেওয়া হয়- দীর্ঘমেয়াদি ও স্বল্পমেয়াদি। দীর্ঘমেয়াদি বা ট্রান্সফার অব টেকনোলজি হিসেবে দীর্ঘ মেয়াদে আসেন চিকিৎসকরা। আবার ১ থেকে ৭ দিনের জন্যেও স্বল্পমেয়াদে আসতে পারেন। তবে একদিনের জন্যে এলেও তার জন্যে বিএমডিসি’র অনুমোদন নিতে হবে’।

‘বিএমডিসি’র অনুমোদন না নিয়ে রোগী দেখলে স্থানীয় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সেক্ষেত্রে থানাকে আমরা বিষয়টি জানিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে বলে থাকি’- বলেন বসুনিয়া।

‘এছাড়া স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কেও বিষয়টি জানাতে হয়। আর যদি দীর্ঘমেয়াদে আয়ের জন্যে আসেন, তবে সেক্ষেত্রে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মাধ্যমে তার পারিশ্রমিকের বিষয়টিও নির্ধারণ করতে হয়’।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (হাসপাতাল) সামিউল ইসলাম সাদী বাংলানিউজকে বলেন, ‘ডা. গৌতম খাস্তগীরের বাংলাদেশে অনুমোদনের বিষয়ে মেডিকেল-ডেন্টাল কাউন্সিল ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে খোঁজ নেওয়া হবে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার এ অবৈধ ব্যবস্থাপনায় রোগী দেখার বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে’।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকালে বিএমডিসি’র নিবন্ধন শাখায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এ নামে কলকাতার কোনো চিকিৎসকেরই দেশে রোগী দেখার অনুমোদন নেই।

জানা গেছে, বাংলাদেশে প্রথমে বন্দরনগরী চট্টগ্রাম, পরে ঢাকার একটি চিকিৎসাসেবা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে প্রতারণার জাল বিছিয়েছেন এই চিকিৎসক গৌতম খাস্তগীর।

তবে কলকাতার ডা. গৌতম খাস্তগীরের কোনো মেয়াদেরই নিবন্ধন নেই বলে বাংলানিউজকে জানান বিএমডিসি’র প্রশাসনিক কর্মকর্তা বোরহানউদ্দিন। তিনি বলেন, দেশের কোনো মেডিকেল কলেজ বা হাসপাতালে বা অন্য কোথাও রোগী দেখার জন্যে ডা. গৌতম খাস্তগীর আবেদন করেননি।

প্রিয়তা বালা (ছদ্মনাম) নামে একজন নারী বাংলানিউজকে বলেন, ‘ডা. গৌতম খাস্তগীরের পরামর্শে কলকাতায় যাই। তার আগে স্বামীর সঙ্গে এখানে-সেখানে খোজঁ-খবর নিয়ে জানতে পারি, খোদ কলকাতার রোগীদেরই তার প্রতি আস্থা নেই। যে কারণে বাংলাদেশি রোগীদের দিকে ঝুঁকছেন তিনি’।

কলকাতার একটি সূত্র বাংলানিউজকে জানিয়েছে, সেখানকার একজন সাংবাদিকের মাধ্যমে ঢাকায় প্রতারণার ঘাঁটি গাড়তে চাইছেন ডা. গৌতম খাস্তগীর। নি:সন্তান দম্পতিদের আবেগকে পুঁজি করেই এখান থেকে কলকাতায় নিজের বাণিজ্য সম্প্রসারণ করতে চাইছেন তিনি।

আসামের বাজারে ‘জঙ্গিদের’ গুলি, নিহত ১৪

ভারতের আসামে ‘জঙ্গিদের’ গুলিতে ১৪ জন নিহত হয়েছেন। আজ শুক্রবার কোকরাঝাড় এলাকার বালাজান তিনালির এক বাজারে গুলি চালায় দুর্বৃত্তরা। ঘটনায় আহত হয়েছেন ১৫ জন।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে এক ‘হামলাকারী’ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া। তবে ভারতের আরেক সংবাদমাধ্যম টাইমস নাউ জানিয়েছে, ওই ব্যক্তি হামলাকারী কি না, তা এখনো নিশ্চিত করা হয়নি।

তবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দাবি করছে, নিহত ওই ‘হামলাকারীর’ কাছ থেকে একে-৪৭ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে দুর্বৃত্তদের ২০ মিনিটের মতো বন্দুকযুদ্ধ হয়। গুলি করা ছাড়াও হামলাকারীরা বাজারে একটি গ্রেনেডও নিক্ষেপ করে।

আসামের উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তা (ডিজিপি) এ হামলার জন্য ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট অব বোরোল্যান্ডকে (সংবিজিত) দায়ী করেছেন।

ঘটনার পরই ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন আসামের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সান্ন্যাল।

ভারতের প্রতিরক্ষা দপ্তরের মুখপাত্র লে. কর্নেল এস নিউটন বলেন, ‘তিন জঙ্গি এ ঘটনা ঘটাতে পারে, যার একজন নিহত হয়েছে। সেনারা অন্য জঙ্গিদের সন্ধান করছে ওই এলাকায়।’

ওই মার্কেটে ছিলেন সন্তোষ নারজারি নামের এক লোক। তিনি বলেন, ‘দেখলাম, অস্ত্র নিয়ে এক লোক দাঁড়িয়ে আছে। তার পরনে রেইনকোটের মতো কালো গাউন। অন্য দুজন অটোরিকশায় বসা ছিল। এক এক করে মানুষকে লক্ষ্য করে গুলি করছিল।’

 

Be SPONSORED Now                                                           ।|                                                     Be SPONSORED By
994845_222113644606426_1372751799_n (1)
icon_03330f6935bcffa1c31e43d9b18d34c5
০৫ আগস্ট, ২০১৬
নামাজের সময়সূচি   
ফজর ভোর ৩:৪৪ মিনিট
জোহর বেলা ১১:৫৯ মিনিট
আসর বিকেল ৪:৩৬ মিনিট
মাগরিব সন্ধ্যা ৬:৪৭ মিনিট
ইশা রাত ৮:১০ মিনিট
আগামীকালের সূর্যোদয়
ভোর ৫:১১ মিনিট
আজ সূর্যাস্ত
সন্ধ্যা ৬:৪৭ মিনিট

 

‘বঙ্গ’ বা ‘বাংলা’ বা ‘বেঙ্গল’ নামকরণ নিছক নামকরণ নয়, বরং এটা ভারতীয় মোড়লের নির্লজ্জ আস্ফালন ও গভীর ষড়যন্ত্রেরই সূচনা

মহাভারত আমাদের অযাচিত অনেক কিছু দেয়, আবার প্রাপ্য অনেক কিছু থেকেই বঞ্চিত করে। বেশির ভাগ সময় আমাদেরকে চুনোপুটি ঠাওরে রাঘববোয়াল ভারত না চাইতেই জোর করে বাজে কিছু গছিয়ে দেয় এবং তারও অধিক সুখ-শান্তি কেড়ে নেয়। এই যেমন ধরুন, এই মুহূর্তে আমাদের জলের কোনো দরকার নেই, কিন্তু উনারা ফারাক্কার স্লুইস গেট হাট করে খুলে দিয়েছেন। এখন বানভাসীর ঠেলায় আমাদের অবস্থা বড়ই বেহাল। আবার শুকনো মৌসুমে চাতক পাখির মতো একটু জলের আশায় ওদের দিকে তাকিয়ে থাকতে থাকতে চক্ষু শুকিয়ে গেলেও ওরা আমাদের দেয় সাহারার মরুভূমি। দিনের বেলা গরু না দেওয়ার পণ করে রাতে গরুও দেয় আবার আমাদের গরু ব্যবসায়ীদের চোরাকারবারি ঠাওরে গুলি করেও মারে।

আজকাল বন্যহাতির তাণ্ডবের ভাগও আমাদের দেওয়া হচ্ছে। এই লেনাদেনার এখনকার সবচেয়ে বড় আলোচনার ঘটনা রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের নামে ওরা আমাদের ভারী জঞ্জাল উপহার দিচ্ছে। আর বিনিময়ে বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ সুন্দরবনটাকেই কেড়ে নিয়ে বাংলাদেশের অক্সিজেনের ভাণ্ডার খালি করে দিতে চাইছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে কবিগুরুর ‘দেবে আর নেবে, মিলিবে মেলাবে’ পুরোদস্তুর ভুল প্রমাণ করে ভারত নেবেটাকেই একমাত্র ব্রত করেছে। আমাদের হাজারো ধ্বংসে ওরা লীলা-উৎসব করে আর গদিটাকে পোক্ত করার আশায় নতজানু আমরা কেবলই নির্বাক বসে থাকি!

কিন্তু এবার সেই ভারতীয় মোড়লেরা আমাদের আত্মা ধরে টান দিয়েছে। তার খবর কী আমরা রাখছি? আমরা সাধারণেরা নরম গলায় হলেও জলের প্রতিবাদ, বনের প্রতিবাদ বা সীমান্ত হত্যার প্রতিবাদ করে যাচ্ছি। বান আর সুন্দরবনের ডামাডোলে এক সাগর রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের বাংলাটাই যে কেড়ে নেওয়ার পায়তারা হচ্ছে। তার বেলা আমরা পিনপতন নীরব।

ভারতীয় প্রজাতন্ত্রের ২৯টি রাজ্যের অন্যতম রাজ্য পশ্চিমবঙ্গ তাদের রাজ্যের নাম বদলে রাখতে চাইছে ‘বাংলা’ বা ‘বঙ্গ’। ইংরেজিতে নাম হবে ‘বেঙ্গল’। অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গের ‘পশ্চিম’ বাদ, এবার শুধুই বাংলা! আমাদের কারো কোনো কথা চিন্তা না করেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি তাঁর রাজ্যের নাম পরিবর্তনের প্রারম্ভিক ক্রিয়া সমাপ্ত করে ফেলেছেন।

ওখানকার বিধায়করা যুক্তি দিচ্ছেন, পূর্ববঙ্গ, বা ইস্ট পাকিস্তান যদি সগৌরবে বাংলাদেশ হতে পারে, তা হলে স্বাধীন ভারতের অঙ্গরাজ্য পশ্চিমবঙ্গ বাংলা হবে না কেন?  অতএব ভবিষ্যতে শুধুই বেঙ্গল হিসেবে পরিচিত হতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গ৷ বাংলাতেও রাজ্যের নাম হবে ‘বাংলা’, অথবা ‘বঙ্গ’৷ এই মর্মে একটি সিদ্ধান্ত ইতিমধ্যে পাস হয়ে গেছে রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে৷ সিদ্ধান্তটি এরপর রাজ্য বিধানসভার একটি বিশেষ অধিবেশনে অনুমোদিত হবে এবং তারও পরে পরিবর্তিত নামটি যাবে সংসদের অনুমোদনের জন্য৷ পশ্চিমবঙ্গের পূর্বতন বামফ্রন্ট সরকারও একই দাবি তুলেছিল। তবে বিচার বিবেচনা করে সেই সময় কেন্দ্রীয় সরকার তা বাতিল করে দিয়েছিল। এবার আবারও মমতা ব্যানার্জির মাথায় পুরোনো পোকাটা ওড়াওড়ি শুরু করে দিয়েছে।

যুক্তি হিসেবে বলা হচ্ছে, রাজ্যের নাম ওয়েস্ট বেঙ্গল বলে কেন্দ্রে যেকোনো আলোচনা বা দাবি দাওয়া পেশের ক্ষেত্রে সবার পরে ডাক আসে ওই রাজ্যের। কারণ ওদের নামের আদ্যাক্ষর ‘ডব্লিউ’! এখন ওই খোড়া যুক্তি অনুযায়ী ত্রিপুরা রাজ্য যদি বলে- আমাদের ‘টি’ খুবই পেছনে তাই আমাদের রাজ্যের নাম আমরা এপুরা, বিপুরা বা নিদেনপক্ষে ডিপুরা রাখতে চাই- তার বেলা কী হবে?

বৃহত্তর বঙ্গদেশে সভ্যতার সূচনা ঘটে আজ থেকে ৪ হাজার বছর আগে। এই সময় দ্রাবিড়, তিব্বতি-বর্মি ও অস্ত্রো-এশীয় জাতিগোষ্ঠী এই অঞ্চলে এসে বসতি স্থাপন করেছিল। বঙ্গ বা বাংলা নামের সঠিক উৎসটি অজ্ঞাত এবং এই সম্পর্কে একাধিক মতবাদ প্রচলিত আছে। ধারণা করা হয়, খ্রিস্টপূর্ব ১০০০ অব্দে এই অঞ্চলে বসবাসকারী দ্রাবিড়-ভাষী বং জাতিগোষ্ঠীর ভাষা বা তাদের নামানুসারে এই অঞ্চলের নামকরণ হয় বঙ্গ। সংস্কৃত সাহিত্যে বঙ্গ নামটি অনেক জায়গাতেই পাওয়া যায়। ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ ভারতের বাংলা প্রদেশের পশ্চিমাঞ্চল স্বাধীন ভারতের অঙ্গরাজ্যে পরিণত হলে এই রাজ্যের নামকরণ পশ্চিমবঙ্গ করা হয়েছিল। ইংরেজিতে West Bengal (ওয়েস্ট বেঙ্গল) নামটিই সরকারিভাবে প্রচলিত। ২০১১ সালে পশ্চিমবঙ্গ সরকার রাজ্যের ইংরেজি নামটি পালটে Paschimbanga  রাখার প্রস্তাব দেয়।

আইন অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলের প্রক্রিয়া শুরু হওয়ায় সেখানকার শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়, সমরেশ মজুমদার, শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার, অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, নাট্য নির্দেশক বিভাস চক্রবর্তী, কবি শঙ্খ ঘোষসহ বর্ষীয়ান শিল্পী, সাহিত্যিক ও বুদ্ধিজীবীরা -একে স্বাগত জানিয়েছেন। বাংলার সাথে তাঁদের নাম ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে খোদাই হয়ে যাবে, তাঁরা নাম বদলে প্রীত নাইবা হবেন কেন? কিন্তু এই বেলা আমাদের বুদ্ধিজীবীদের প্রতিক্রিয়া কী, তা জানা যাচ্ছে না।

চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে নাম বদলের প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য প্রাদেশিক বিধানসভার বিশেষ সেশনে উপস্থাপিত হবে। তারপর এই প্রস্তাব যাবে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য দিল্লিতে ভারত সরকারের কাছে। ভবিষ্যৎই বলে দেবে এই নাম বদলে পশ্চিমবঙ্গ ভুল করল না সঠিক কাজটি করল।

 

Be SPONSORED Now                                                           ।|                                                     Be SPONSORED By
994845_222113644606426_1372751799_n (1)
icon_03330f6935bcffa1c31e43d9b18d34c5
০৫ আগস্ট, ২০১৬
নামাজের সময়সূচি   
ফজর ভোর ৩:৪৪ মিনিট
জোহর বেলা ১১:৫৯ মিনিট
আসর বিকেল ৪:৩৬ মিনিট
মাগরিব সন্ধ্যা ৬:৪৭ মিনিট
ইশা রাত ৮:১০ মিনিট
আগামীকালের সূর্যোদয়
ভোর ৫:১১ মিনিট
আজ সূর্যাস্ত
সন্ধ্যা ৬:৪৭ মিনিট

 

পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তন!

পরিবর্তিত হতে চলছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নাম। মঙ্গলবার দেশটির মন্ত্রিসভায় পাস হয়ে গেল এই রাজ্যের নাম পরিবর্তনের প্রস্তাব। ঠিক হয়েছে, রাজ্যের নাম বাংলা ভাষায় হতে চলেছে ‘বাংলা’ বা ‘বঙ্গ’। ইংরেজিতে নাম হবে ‘বেঙ্গল’। খবর এনডিটিভির।

 

খবরে উল্লেখ, মঙ্গলবার সকালে সাংবাদিক সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, মন্ত্রিসভায় রাজ্যের নাম বদলের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। এই বিষয়ে সর্বদলীয় বৈঠকেও আলোচনা করা হবে। তারপর রাজ্যের নাম পরিবর্তনের প্রস্তাব নিয়ে যাওয়া হবে বিধানসভায়। সেখানে ওই প্রস্তাব পাস হলে পশ্চিমবঙ্গের নাম বদলানোর প্রস্তাব সংসদে পাঠানো হবে বলেও এদিন জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

 

 

খবর পর্যালোচনাঃ ‘বাংলা’ বা ‘বঙ্গ’ বা ‘বেঙ্গল’ নামকরণ করা হলে সেটা বাংলাদেশ মেনে নিতে পারেনা কেননা ঐ নামগুলো ইতোমধ্যেই ইতিহাসে শুধুমাত্র পূর্ব বঙ্গ তথা  বাংলাদেশের জন্যই নির্ধারিত হয়ে গেছে। ‘বাংলা’ নিয়ে বলতে গেলে নামটাই তো  বাংলাদেশ, নামের কারণে ‘বাংলা’ শুধুই বাংলাদেশের জন্যই খাস। ‘বঙ্গ’ নিয়ে বলতে গেলে বলা যায় বঙ্গবন্ধুর কারণে ‘বঙ্গ’-ও বাংলাদেশের জন্য খাস হয়ে গেছে। আর রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের কারণে ‘বেঙ্গল’ নামটিও পশ্চিম বঙ্গ নিতে পারেনা।

 

Be SPONSORED Now                                                           ।|                                                     Be SPONSORED By
994845_222113644606426_1372751799_n (1)
icon_03330f6935bcffa1c31e43d9b18d34c5
0২ আগস্ট, ২০১৬
নামাজের সময়সূচি   
ফজর ভোর ৩:৪৪ মিনিট
জোহর বেলা ১১:৫৯ মিনিট
আসর বিকেল ৪:৩৬ মিনিট
মাগরিব সন্ধ্যা ৬:৪৭ মিনিট
ইশা রাত ৮:১০ মিনিট
আগামীকালের সূর্যোদয়
ভোর ৫:১১ মিনিট
আজ সূর্যাস্ত
সন্ধ্যা ৬:৪৭ মিনিট

 

আসামের বন্যার রিপোর্টে নোয়াখালির ছবি

ভারতের আসাম রাজ্যে চলমান বন্যা নিয়ে রাজ্য সরকারের তৈরি করা রিপোর্টে নোয়াখালির বন্যার বিখ্যাত একটি পুরনো ছবি ব্যবহৃত হওয়ায় প্রশাসন চরম অস্বস্তিতে পড়েছে। আর এই রিপোর্টটি যেমন-তেমন কোনও রিপোর্ট নয়, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়াল গতকাল শনিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের হাতেই আসামের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে এই অন্তর্বর্তীকালীন রিপোর্টটি তুলে দেন। দশ পাতার এই রিপোর্টে আসামে বন্যার হাল নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন তুলে ধরা হয়েছে, সেই সঙ্গেই বন্যার দুর্যোগ যে কত ব্যাপক তা বোঝানোর জন্য ব্যবহার করা হয়েছে মোট ৯টি ছবি। কিন্তু এই ৯টি ছবির মধ্যে একটি হল একটি কিশোর ছোট একটি হরিণ শাবককে এক হাতে জলের ওপর তুলে ধরে বন্যার জল ভেঙে এগিয়ে যাচ্ছে। এই ছবিটি আসলে প্রায় আড়াই বছরের পুরনো ২০১৪ সালে বাংলাদেশের বন্যার সময় নোয়াখালিতে এই ছবিটি তুলেছিলেন বাংলাদেশের ফটোগ্রাফার হাসিবুল ওয়াহাব। একটি নিউজ এজেন্সির পরিবেশিত ওই ছবিটি লন্ডনের দ্য ডেইলি মেইল পত্রিকাতেও প্রকাশিত হয়েছিল – আর বাংলাদেশের ওই আলোকচিত্রীকে এনে দিয়েছিল আন্তর্জাতিক খ্যাতি।

কিন্তু সেই বিখ্যাত ছবিটি আসামের মুখ্যমন্ত্রীর পেশ করা রিপোর্টে তার রাজ্যের ছবি হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে, এটা জানাজানি হওয়ার পরই চরম হইচই শুরু হয়ে যায়। শনিবার রাতে আসামের মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে সংবাদমাধ্যমে ইমেইল করে জানানো হয় এই ছবি-কেলেঙ্কারির জেরে নগাঁও জেলার একজন সরকারি কর্মকর্তা মধুমিতা ভাগবতীকে সাসপেণ্ড করা হচ্ছে। তিনিই নাকি একটি হোয়াটসঅ্যাপে গ্রুপে ছড়িয়ে পড়া ওই ছবিটি সরকারি একটি গ্রুপে ফরোয়ার্ড করেন – এবং বলেন সেটি আসামের কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যানে বিপন্ন বন্য প্রাণীদের ছবি। আসাম রাজ্য প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা বলছেন, বন্যায় তাদের রাজ্যের অবস্থা সত্যিই দুর্বিষহ – গোটা রাজ্যে প্রায় ৩০জন মারা গেছেন, কাজিরাঙা বা মানাস জাতীয় উদ্যানে বন্য প্রাণীদের অবস্থাও খুবই শোচনীয় – কিন্তু এই ছবি-বিভ্রাট গোটা পরিস্থিতিকে বেশ খেলো করে দিয়েছে এবং সরকারের মুখেও চুনকালি ফেলেছে। আনুষ্ঠানিকভাবে তারা অবশ্য শুধু এটুকুই জানাচ্ছেন, ‘আমাদের বন্যা রিপোর্টে অনিচ্ছাকৃতভাবে একটি ছবির ভুল ঘটে গেছে – যে ছবির সঙ্গে আসামের আসলে কোনও সম্পর্ক নেই!’

Be SPONSORED Now                                                           ।|                                                     Be SPONSORED By
994845_222113644606426_1372751799_n (1)
icon_03330f6935bcffa1c31e43d9b18d34c5
৩১ জুলাই, ২০১৬
নামাজের সময়সূচি   
ফজর ভোর ৩:৪৪ মিনিট
জোহর বেলা ১১:৫৯ মিনিট
আসর বিকেল ৪:৩৬ মিনিট
মাগরিব সন্ধ্যা ৬:৪৭ মিনিট
ইশা রাত ৮:১০ মিনিট
আগামীকালের সূর্যোদয়
ভোর ৫:১১ মিনিট
আজ সূর্যাস্ত
সন্ধ্যা ৬:৪৭ মিনিট