🖌 সরকার গঠনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন থেরেসা মে

নির্বাচনে প্রত্যাশিত ফল অর্জনে ব্যর্থ হওয়া সত্ত্বেও সরকার গঠনের অনুমতি চাইবেন থেরেসা মে। আজ শুক্রবার বাকিংহাম প্যালেসে রানির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যাওয়ার কথা রয়েছে তাঁর।ভোটের হিসাবনিকাশ বদলে যাওয়ার পরেও থেরেসা মে ডেমোক্রেটিক ইউনিয়নিস্ট পার্টির কাছ থেকে সমর্থনের আশা করছেন। আর তাতেই তিনি ক্ষমতায় থেকে যাওয়ার চেষ্টা করছেন।আর মাত্র একটি আসনের ফল ঘোষণার বাকি। ৩২৬ আসন পেলেই কেবল একটি দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠ হিসেবে সরকার গঠন করতে পারবেন। সে হিসেবে থেরেসা মের কনজারভেটিভ পার্টির আটটি আসন ঘাটতি রয়েছে।অন্যদিকে লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন থেরেসা মেকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, লেবার পার্টি সরকার গঠনে প্রস্তুত। লেবার পার্টির আসন ২৬১, যা গতবারের তুলনায় ৩১টি বেশি। তবে থেরেসা মে প্রধানমন্ত্রীর পদ ছাড়তে অস্বীকার করেছেন।স্থানীয় সময় গতকাল বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনে ভোট নেওয়া হয়। একটি আসন বাদে সব কটি ফলাফল চলে এসেছে। তাতে দেখা গেছে, ক্ষমতাসীন থেরেসা মের কনজারভেটিভ পার্টি পার্লামেন্টে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি।ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব কমনসের মোট আসন ৬৫০টি। কোনো দল এককভাবে ৩২৬ আসন পেলেই সংখ্যাগরিষ্ঠ হিসেবে সরকার গঠন করতে পারে। থেরেসা মে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেও ডেমোক্রেটিক ইউনিয়নিস্ট পার্টির (ডিইউপি) সমর্থন পেয়ে সরকার গঠনের জন্য রানির কাছে যাচ্ছেন। এ নির্বাচনে ডিইউপি পেয়েছে ১০টি আসন।২০১৫ সালে ডেভিড ক্যামেরনের নেতৃত্বে কনজারভেটিভ পার্টি ৩৩০টি আসন পেয়ে এককভাবে ক্ষমতায় ফেরে। আর বিরোধী দল লেবার পার্টি পায় ২২৯টি আসন। তথ্যসূত্র: বিবিসি

Advertisements